মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ভাষা ও সংস্কৃতী

দিঘলী ইউনিয়নে ভাষা ও সংস্কৃতি :

 ছড়াকার, কবি জনাব এ.কে এম.রইস উদ্দিন  জন্ম স্থান দিঘলী  ইউনিয়নের দূর্গাপুর গ্রামে।তিনি একজন শিক্ষানুরাগি মানুষ, তার কবিতার বই সমুহের মধ্যে তৃষ্ণার্ত বাংলাদেশ, জননী জন্ম ভুমির কথা নামক গ্রন্থ যা বর্তমানে বাজারে রয়েছে । তিন তার ছাত্র জিবনে খেলাধুলা ও নাটক চর্চায় তাঁর বেশ দখল ছিল। এ ছাড়াও গ্রামের অধিকাংশ মানুষ কৃষি কাজ গবাদি পশু গরু-ছাগল-মহিষ ও হাঁস-মুরগি পালন,শাক-সবজি চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে। এনজিও-সরকারি চাকুরী,শিক্ষকতা ছাড়া স্বল্প সংখ্যক গ্রামবাসী প্রবাসে কর্মরত। নেই কোন শিল্প কারখানা। আছে কিছু পোলট্রি খামার, মৎস্য চাষ এবং সীমিত পরিসরে ব্যবসা বাণিজ্য। জনসংখ্যার বিস্ফোরণ, কারিগরী-সাধারণ শিক্ষার অভাবে বেকারত্ব ও দারিদ্রতা ভয়াবহ। শিক্ষা-দীক্ষায় দেশের অন্যান্য জনপদ থেকে এখনও অনেক পিছিয়ে আছে শিক্ষা, উন্নয়নে বঞ্চিত পিছিয়ে পড়া জনপদ । গ্রামবাসীর ধর্মীয় অনুশাসনের প্রতি অবিচল আস্থা ও অগাধ বিস্বাস আছে। সংখ্যা গরিষ্ঠ মুসলিম জনগনের সাথে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সহকারে মিলেমিশে বসবাস করছে।

ভাষাঃ বাংলা,

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter